Last Update: 2013-09-19 02:02:08 pm

টি-২০ বিশ্বকাপের স্বপ্ন নেপালের

ডেস্ক রিপোর্ট 2013-09-13 04:30:56 pm

সামন হোসেন, কাঠমান্ডু (নেপাল) থেকে:  ১৯৬৮ সালে প্রথম খেলা হিসেবে ক্রিকেটকে অন্তর্ভুক্ত করে নেপালের ন্যাশনাল স্পোর্টস কাউন্সিল। তবে দীর্ঘ এই ৪৫ বছরে নেপালি মানুষের মনে জায়গা করে নিতে পারেনি ক্রিকেট। বরং আন্তর্জাতিক সফলতা না থাকার পরও ফুটবল পাশে পাচ্ছে নেপালি জনগণ। তাই বলে বসে নেই নেপাল ক্রিকেট এসোসিয়েশন। ক্রিকেটে উন্নতির জন্য তারা সাধ্যমতো চেষ্টা করে যাচ্ছে। সফলতাও আসছে। নেপাল ক্রিকেটের বড় সাফল্য হলো ডিভিশন ‘৩’ জেতা। যে কারণে ওয়ানডে বিশ্বকাপ বাছাই খেলতে পারছে নেপাল। আপাতত ওয়ানডে বিশ্বকাপে খেলা নেপালের জন্য কঠিন হলেও সম্ভাবনা রয়েছে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে অংশ নেয়ার। মার্চে বাংলাদেশের অনুষ্ঠেয় টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে অংশ নিবে ১৬ দল। এই ১৬ দলের ছয়টি দল আসবে বাছাই পর্বের হার্ডল পেরিয়ে। গত টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের বাছাই পর্বে সপ্তম হওয়ার কারণে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে খেলার বাস্তব সম্ভাবনা দেখছে নেপাল ক্রিকেট এসোসিয়েশন।
৬৮ সালে ক্রিকেটকে নেপালের স্পোর্টস কাউন্সিলর স্বীকৃতি দিলেও এর চর্চা শুরু হয় বহু আগে। রানার হাত ধরে নেপালের ক্রিকেটের সূচনা হয়েছে। রানা হলেন তখনকার খুব ধনী, তাদের পরিবারের বেশির ভাগ লোক  ভারতে থাকে বলেই তাদের সুবাদেই এখানে ক্রিকেটের প্রচলন। এখন ভারতের সঙ্গে যেহেতু বেশ কিছু অংশ জুড়ে বর্ডার সেখানে ক্রিকেটটা বেশি জনপ্রিয়, এমনকি পাহাড়ি এলাকায়ও ক্রিকেট হয়। ১৯৯৬ সাল থেকে এসিসি কাপ দিয়ে শুরু হয় নেপালের আন্তর্জাতিক ক্রিকেট। মালয়েশিয়ায় প্রথম ম্যাচ ছিল বাংলাদেশের বিপক্ষে, হারে শুরু। এরপর নেপাল অংশ নেয় দু’বছর পরপর প্র্যতেক এসিসি ট্রফিতে। আইসিসি ট্রফি প্রথম খেলে ২০০১ সালে। ২০০২ সালে এসিসি ট্রফি চ্যাম্পিয়ন হিসেবে এশিয়া কাপে খেলার সুযোগ  পেয়েছিল তারা, কিন্তু কার্গিল যুদ্ধের কারণে এশিয়া কাপই হয়নি। এটা না হলে এতদিনে এশিয়া কাপের মতো প্রথম বড় টুর্নামেন্ট তাদের খেলাও হয়ে যেতো।  সেটা না হলেও নেপাল এখন রয়েছে ডিভিশন ‘২’ তে।  যে কারণে ২০১৪ জানুয়ারিতে নিউজিল্যান্ডে ওয়ানডে বিশ্বকাপের বাছাই পর্বে খেলার সুযোগ পাচ্ছে তারা। ডিভিশন ‘২’ তে নেদারল্যান্ডস, আয়ারল্যান্ডস, আফগানিস্তান ও স্কটল্যান্ডকে টপকে ওয়ানডে বিশ্বকাপ খেলা আপাতত তাদের সম্ভব নয়। সেটি না হলেও বাংলাদেশের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের স্বপ্ন দেখছেন স্থানীয় ইংরেজি দৈনিকের সাংবাদিক বিনোদ পান্ডেও। তাদের স্বপ্ন দেখাচ্ছেন নেপালের সাম্প্রতিক পারফরমেন্স। শেষবার বাছাইয়ে নেপাল সপ্তম হয়ে শেষ করেছিল। এখন আগেরবারের চেয়ে দলের অবস্থা ভাল। প্রথমবারের মতো কাঠমান্ডুর এসিসির ট্রফির ফাইনালে পৌঁছেছে নেপাল যদিও ফাইনালে হেরে গেছে আফগানিস্তানের সঙ্গে। এর পুরস্কারও পাচ্ছে নেপাল ক্রিকেট এসোসিয়েশন। ডিভিশন ‘৩’ থেকে ‘ডিভিশন ‘২’ উন্নতি হওয়ায় আইসিসির আর্থিক সহায়তা ২ লাখ ডলার থেকে বেড়ে দাঁড়াচ্ছে ৩ লাখ ২০ হাজার ডলারে। এশিয়ান ক্রিকেট কাউন্সিল থেকে বাৎসরিক ৬০ হাজার ডলার পাচ্ছে নেপাল। ফুটবলের জনপ্রিয়তার জোয়াড়েও  নেপাল জার্নালিস্ট ফোরাম এ বছর সেরা কোচ নির্বাচন করেছে দেশনায়েকে এবং সেরা খেলোয়াড় ক্রিকেট অধিনায়ক পরেশ খাড়কাকে। জনপ্রিয়তার দিক থেকে নেপালের ফুটবল এক নম্বর খেলাও অর্জনের দিক দিয়ে ক্রিকেট দ্রুত এগোচ্ছে। তবে এতে প্রতিবন্ধকতা হিসেবে দেখা দিয়েছে মাঠের অপার্যপ্ততা ও ঘরোয়া ক্রিকেটের অবকাঠামো না থাকা। পুরো কাঠমান্ডুতে ক্রিকেট খেলার উপযোগী মাঠ রয়েছে মাত্র দুটি। যার একটি কীর্তিপুরের ক্রিকেট স্টেডিয়াম, আরেকটা গ্রাউন্ড হলো ইঞ্জিনিয়ারিং মাঠ। সবচেয়ে হতাশার বিষয় হলো, নেপালি ক্রিকেটাররা এক বছরে ঘরোয়া ক্রিকেটে খেলে মাত্র ১০ থেকে ১২টি ম্যাচ। একটি ওয়ানডে এবং একটি টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্ট হয়। ক্রিকেট খেলে তেমন কোন টাকা পয়সাও পান না নেপালি ক্রিকেটাররা। আর্মড পুলিশ ফোর্সের খেলোয়াড়রা তাদের সরকারি প্রতিষ্ঠান থেকে টাকা পান। আর জাতীয় দলের বাকিরা মাসে ১৫ হাজার করে পায় তার মধ্যে ১০ হাজার টাকা পায় ন্যাশনাল স্পোর্টস কাউন্সিল থেকে আর বাকি ৫ হাজার টাকা দেয় নেপাল ক্রিকেট এসোসিয়েশন। তার পরও এগুচ্ছে নেপালের ক্রিকেট। নেপালের সেরা খেলোয়াড় পরেশ খাড়কা, কানাডার ওন্টারিওতে ক্লাব ক্রিকেট খেলছেন। পরেশ ও জ্ঞানেন্দ্র মাল্লার ঢাকায় ক্লাব ক্রিকেটে খেলার কথা ছিল কিন্তু পাসপোর্ট জটিলতায় যাওয়া হয়নি।

 

এই সংবাদ সম্পর্কে আপনার মতামত দিন পাঠকের মন্তব্য (0)    মোট দর্শন(2434)

You can switch to English and Bangla anytime by pressing Ctrl+y in windows and linux (Command+y in mac)



Can't read the image? click here to refresh

X
(4:50 AM) raj: sdf
(4:50 AM) raj: o k
(5:50 AM) raasdsdf: sddsfsdff
(5:50 AM) raasdsdf: df fsdf sdf
(5:50 AM) raasdsdf: df sdfsdf
(5:50 AM) raasdsdf: sdfsdf
(5:50 AM) raasdsdf: sdf sdf
(5:50 AM) raasdsdf: sdfa sdf sdfsf
(5:51 AM) raasdsdf: dsf sdfsdf sdf
(5:51 AM) raasdsdf: sdfas sdf sfsdf
(5:51 AM) raasdsdf: sdf sdfasdfasdf
(5:51 AM) raasdsdf: sd asfasdf
(5:51 AM) raasdsdf: sdf sfasdfsadfsdf
(5:51 AM) raasdsdf: sdf asdfsdf
(3:14 AM) raj: .
(9:37 AM) :
(5:49 AM) irfan: best Bangladeshi news paper
(8:49 AM) :
(11:25 AM) arnob: Nice web portal with huge features anybody here
(6:21 AM) :
(8:25 AM) rabin: hi
(2:12 PM) আমাদের বানারীপাড়া: আমাদের বানারীপাড়া
(1:32 PM) :
(9:25 PM) পরি: আমার বিয়ে হয়েছে এই চার মাস চলছে। আমার স্বামী আমাকে রেপ করে বিয়ে করেছেন।আমার স্বামী খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ে বিবিএ তে পড়ছে। আমার বাবা মা দুজনই মৃত।এজন্য তার পরিবার থেকে মেনে নিবে না।ছেলে এখন অন্য মেয়ের সাথে রিলেশনে ব্যস্ত। আমার সাথে যৌতুক চেয়ে তালাকের হুমকি দিয়েছিল। ২ সপ্তাহ আগে জানতে পারলাম সে নাকি তালাক দিয়েছে কোন উকিলের কাছে যেয়ে দিয়েছে।কিন্তু আমার কাছে এখনো কোনো কাগজ বা নোটিস আসেনি। এই অবস্হায় আমি তাকে কিভাবে কঠোর শাস্তি প্রদান করিতে পারি। :-(
(9:30 PM) পরি: উল্লেখ্য তার সাথে ২ সপ্তাহ ধরে যোগাযোগ সম্পূর্ন বন্ধ। শেষ কথার দিন আমাকে হুমকি দিয়েছিল, আমি তাকে ফোন করলে আমার নামে হ্যারাজমেন্ট মামলা করবে। আমার কাছে বিয়ের লিগাল কাবিন আছে
(2:54 AM) :
(1:27 AM) :